সাম্প্রতিক

এক মিনিটে ৭১ টি কয়েন সাজিয়ে গিনেস বুকে নাম লেখালেন বাংলাদেশের নিপা!

এক মিনিটে এক হাত ব্যবহার করে একটার ওপর আরেকটি কয়েন সাজিয়ে গিনেস বুকে রেকর্ড করেছেন বরিশালের তরুণী নুসরাত জাহান নিপা। এক মিনিটে ৭১টি কয়েন টাওয়ার আকারে সাজিয়ে তিনি এ রেকর্ড গড়েছেন।

এর আগে এক মিনিটে সবচেয়ে বেশি কয়েন সাজানোর রেকর্ডটি ছিল ইতালির নাগরিক সিলভিও সাবা নামে এক যুবকের। ২০১৫ সালে, ৬৯টি কয়েন সাজিয়ে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পেয়েছিলেন সিলভিও। ‘মোস্ট কয়েন স্ট্রাকড ইন টু এ টাওয়ার’ ক্যাটাগরিতে ইতালির সিলভিওর চেয়ে দুইটি কয়েন বেশি সাজিয়ে নুসরাত জাহান নিপা এখন সেই রেকর্ডের মালিক।

নুসরাত জাহান নিপা বরিশাল নগরীর দক্ষিণ সাগরদী এলাকার বাসিন্দা ও জেলা গণসংহতি আন্দোলনের আহ্বায়ক দেওয়ান আব্দুর রশিদের ও পারভীন আক্তার দম্পতির একমাত্র মেয়ে। নিপা বরিশাল সরকারি বিএম কলেজ থেকে রসায়ন বিভাগে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেছেন। বর্তমানে বেসরকারি একটি উন্নয়ন সংস্থায় (এনজিও) চাকরি করছেন তিনি। পাশাপাশি অনলাইন ভলান্টিয়ারের কাজ করেন তিনি। বিয়ের পর তিনি স্বামী কাজী শামসুজ্জামানের সঙ্গে নগরীর নথুল্লাবাদ এলাকায় বসবাস করছেন।

নুসরাত জাহান নিপা জানান, ২০২০ সালে যখন করোনা সংক্রমণের সময় লকডাউনে বাসায় অলস সময় পার করছিলেন। তখনই ইউটিউবে ইতালির সিলভিও সাবার টাওয়ার আকারে কয়েন সাজানো ভিডওটি চোখে পড়ে। এই কাজ টি তার খুবই পছন্দ হয়। তখন তিনিও একটার ওপর আরেকটি কয়েন সাজাতে শুরু করেন। মাসখানেক নিয়মিত অনুশীলন করলেও লকডাউনের পর ব্যস্ততার কারণে অনুশীলন আর করা হয়নি তার।

এরপর থেকে সময় পেলেই বসে যেতেন কয়েনের টাওয়ার বানানোর অনুশীলনে। এ জন্য এক টাকার একশটি কয়েন ব্যবহার করেন নিপা। এভাবে চলতে থাকে তার অনুশীলন। এতে তাকে উৎসাহ জোগান তার স্বামী। বিষয়টি তার আয়ত্তে আসলে আগের রেকর্ডধারী ব্যক্তির চেয়ে বেশি কয়েন দিয়ে টাওয়ার বানানোর দিকে মনোযোগী হন নিপা। তাতে সাফল্যও আসে। এতে তার আত্মবিশ্বাস বেড়ে যায়।

এ বছরের মার্চ মাস থেকে ফের কয়েন নিয়ে অনুশীলন শুরু করেন নিপা। গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে স্থান পাওয়া খুব সহজ কাজ হবে না ভেবেই নিয়মিত অনুশীলন করতে থাকেন তিনি। একনিষ্ঠ মনোযোগ ও ধৈর্য সহকারে অনুশীলন করতে থাকেন তিনি। 

আগস্টের মাঝামাঝি সময়ে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের ‘মোস্ট কয়েন স্ট্রাকড ইন টু এ টাওয়ার’ ক্যাটাগরিতে ইতালির সিলভিও’র রেকর্ড ভাঙার চ্যালেঞ্জ করে আবেদন করেন তিনি। আবেদনের প্রায় এক মাস পর গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ সাড়া দেয়। তারা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের নির্দেশনা জানায় তাকে। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস থেকে একটি লিংক পাঠানো হয়। ভিডিও এভিডেন্সে নিপা এক মিনিটে একহাতে এক টাকা মূল্যমানের একাত্তরটি ধাতব কয়েন দিয়ে টাওয়ার বানানোর এভিডেন্স এবং অন্যান্য তথ্য ২৪ সেপ্টেম্বর ওই লিংকে আপলোড করেন নিপা।

ওই ভিডিও এভিডেন্স যাচাই-বাছাই করে গত ৩০ নভেম্বর গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড কর্তৃপক্ষ একটি চিঠিতে ‘মোস্ট কয়েন স্ট্রাকড ইন টু এ টাওয়ার’ রেকর্ড গড়ার স্বীকৃতি দেয়। মঙ্গলবার ডাকযোগে নতুন বিশ্ব রেকর্ডের স্বীকৃতি হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ নিপাকে প্রত্যয়নপত্র পাঠিয়েছে।

আসলে দেখতে যতটা সহজ মনে হয়, বাস্তব ততটাই কঠিন। এক বছরের দীর্ঘ প্রচেষ্টা, পরিবারের সহযোগিতা আর যথাযথ নিয়ম মেনে অংশগ্রহণ শেষে মিলেছে জয়। কেবল পরিবারের নয়, দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে জানিয়ে খুশি গোটা বাংলা।

লেখক- সায়মা আফরোজ (নিয়মিত কন্ট্রিবিউটর AFB Daily)

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় 

Show More

এই জাতীয় আরো পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button