জীবনীসাম্প্রতিক

তারেক শামসুর রেহমানঃ অন্যতম সেরা রাজনৈতিক বিশ্লেষক

অধ্যাপক তারেক শামসুর রেহমান আর নেই! গতকাল থেকে প্রচণ্ড রকমের শক খাওয়ার মত এই নিউজ ভেসে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায় আর টিভির পর্দায়। যারা সাম্প্রতিক এবং আন্তর্জাতিক ইস্যু নিয়ে খবরাখবর রাখেন, তারা মোটামুটি সবাই ই চিনেন ড. রেহমান কে। তাই তার মৃত্যুর খবর প্রথমবার শুনে চমকে উঠছে বাংলাদেশের মানুষ। দেশের অন্যতম সেরা রাজনৈতিক বিশ্লেষক হিসেবে খ্যাতি রয়েছে তারেক শামসুর রেহমানের।

কিন্তু কে এই তারেক শামসুর রেহমান! দেশজুড়ে কেন তার এত গ্রহণযোগ্যতা!

তারেক শামসুর রেহমান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের একজন অধ্যাপক এবং ওই বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) সাবেক সদস্য।

জানা গেছে, তারেক শামসুর রেহমানের জন্ম পিরোজপুর জেলায়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স ও মাস্টার্স ডিগ্রি সম্পন্ন করেন তিনি। পরবর্তীতে জার্মানি থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিষয়ের উপর পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দপ্তরের আইভিপি ফেলাে ছিলেন। দুই বছর আগে অবসরে যান জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষক।

বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনার পাশাপাশি গত দু’দশক ধরে আন্তর্জাতিক রাজনীতি, আন্তঃরাষ্ট্রীয় সম্পর্ক ও বৈদেশিক নীতি নিয়ে গবেষণা করেছেন তিনি। তুলনামূলক রাজনীতি তার আরেকটি গবেষণার বিষয়।

এসব বিষয়ে তার বেশ কিছু বইও প্রকাশ হয়েছে। তার বইগুলো পাঠক মহলে বেশ সমাদৃত। তার উল্লেখযোগ্য গ্রন্থগুলোর মধ্যে রয়েছে- ইরাক যুদ্ধ পরবর্তী আন্তর্জাতিক রাজনীতি, গণতন্ত্রের শত্রু-মিত্র, নয়া বিশ্বব্যবস্থা ও আন্তর্জাতিক রাজনীতি, বিশ্ব রাজনীতির চালচিত্র, উপ-আঞ্চলিক জোট, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি, ট্রানজিট ইস্যু ও গ্যাস রপ্তানি প্রসঙ্গ, বাংলাদেশ: রাষ্ট্র ও রাজনীতি, ভারত-চীন দ্বন্দ্ব, বাংলাদেশ: রাজনীতির ২৫ বছর, বাংলাদেশ: রাজনীতির চার দশক, গঙ্গার পানি চুক্তি: প্রেক্ষিত ও সম্ভাবনা, সোভিয়েত-বাংলাদেশ সম্পর্ক, আন্তর্জাতিক রাজনীতি বিশ্বকোষ, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার রাজনীতি সহ আরো অসংখ্য বই। তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি সমাদৃত হয়েছিলো ‘বিশ্ব রাজনীতির ১০০ বছর’ বইটি।

এছাড়াও ড. রেহমান পত্রপত্রিকায় সমকালীন বিশ্ব পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত কলাম লিখতেন। প্রায় প্রতিটি জাতীয় দৈনিকে তার কলাম নিয়মিত ছাপা হতো। টেলিভিশন টকশোতেও অনেকটা নিয়মিত কথা বলতেন তিনি। সেইসাথে নির্মোহভাবে নানা ইস্যুর বিশ্লেষণ করতেন তিনি।

এছাড়াও ‘আমাদের বাংলাদেশ’ নামে একটি ব্লগ আছে তার। যেখানে সামসময়িক এবং আন্তর্জাতিক ইস্যু নিয়ে বিস্তারিত কলাম লিখতেন তিনি।  ড. রেহমান তার গবেষণার কাজে পৃথিবীর অনেক দেশ সফর করেছেন। 

গত ১৭ এপ্রিল ২০২১ শনিবার, সকাল সাড়ে ১১ টায় উত্তরার ১৮ নম্বর সেক্টরের ‘দোলনচাঁপা’ ভবনে নিজের ফ্লাটে তাকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন উত্তরা বিভাগের উপ কমিশনার মো. শহিদুল্লাহ। সকালে বাসার দরজা ভেঙে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। প্রাথমিক অবস্থায় তার মৃত্যুর কারণ হিসেবে  স্ট্রোক কে চিহ্নিত করা হয়। তদন্তের পর আসল কারণ সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

উল্লেখ্য তার স্ত্রী ও এক মেয়ে যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী। ফলে তিনি বাসায় একাই বসবাস করতেন।


লেখক- সায়মা আফরোজ (নিয়মিত কন্ট্রিবিউটর AFB Daily)

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

Show More

এই জাতীয় আরো পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button