আন্তর্জাতিকসংবাদসাম্প্রতিক

ইজরায়েলের নতুন সরকারের শপথ, নেতানিয়াহুর পশ্চিম তীরের অবৈধ বসতিতে সার্বভৌম ক্ষমতার দাবি

গত রোববার ইসরায়েলে নতুন ঐক্যের সরকারের শপথগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর নেতৃত্বের পার্লামেন্টে সাবেক প্রতিদ্বন্দ্বী বেন্নি গ্যান্টজকে নিয়ে এ শপথ অনুষ্ঠিত হয়।

নতুন সরকারের শপথগ্রহণের পরই ফিলিস্তিনে অবৈধ ইহুদি বসতি সম্প্রসারণ এবং সেখানে ইসরায়েলি সার্বভৌম ক্ষমতার অঙ্গীকার করেছেন প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু।

নতুন সরকারের শপথের মধ্য দিয়ে ইহুদি রাষ্ট্র ইসরায়েলের ইতিহাসে দীর্ঘতম রাজনৈতিক সংকটেরও অবসান ঘটেছে। তিনটি অমীমাংসিত নির্বাচনের পর দেশটির পার্লামেন্ট ঐকমত্যের সরকার নিয়ে একটা চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে উপনীত হতে সক্ষম হয়।

দখলকৃত ফিলিস্তিনের ভূখণ্ডে এই বসতি স্থাপন বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু বলেন, ‘এখন ইসরায়েলি আইনের প্রয়োগ করা ও ইহুদিবাদের সমৃদ্ধ ইতিহাসে আরেকটি উজ্জ্বল অধ্যায় লেখার সময় এসেছে। এগুলো হলো এমন সব এলাকা, যেখানে ইহুদি জাতির জন্ম হয়েছে এবং তারা বেড়ে উঠেছে।’

নেতানিয়াহু আরো বলেন, অধিকৃত পশ্চিম তীরের বড় এক অংশে অবৈধ ইহুদি বসতি সম্প্রসারণ নিয়ে লড়াই চলবে। ভোটাভুটির আগে প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু পার্লামেন্টে দেওয়া ভাষণে বলেন, বসতি সম্প্রসারণের কাজে তাঁর নতুন সরকারকে সার্বভৌম ক্ষমতা খাটাতে হবে। উল্লেখ্য, ফিলিস্তিনে বছরের পর বছর ধরে ইসরায়েল যে বসতি স্থাপনের কাজ চালাচ্ছে, আন্তর্জাতিক আইনের অধীন তা অবৈধ।

ইসরায়েলি পার্লামেন্ট নেসেটের আইনপ্রণেতারা এক ভোটাভুটির পর তিন বছরের জন্য নতুন জোট সরকারের অনুমোদন দিয়েছেন।

তবে নেতানিয়াহুর জোট সরকারের গুরুত্বপূর্ণ শরিক সাবেক সেনাপ্রধান গ্যান্টজ তাঁর ভাষণে এই বসতি সম্প্রসারণের বিষয়ে কিছু উল্লেখ করেননি।

Show More

এই জাতীয় আরো পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button